Home Blog

বিএনপির দফা কত উঁচু হয় সেই অপেক্ষায় আছি: প্রধানমন্ত্রী

0

সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির সাত দফা দাবি প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এতদিন তাদের দাবি ছিল চারটি, এখন তা সাত দফা হয়েছে। দফা কত উঁচু হয় সেই অপেক্ষায় আছি।

সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে এখন কথা বলা, রাজনীতি, সাংবাদিকতা করার স্বাধীনতা আছে। গণতান্ত্রিক ধারায় সবার রাজনীতি করার সুযোগ আছে। যারা এখন ঐকবদ্ধ হয়েছে তাদের কার কি ভূমিকা তা সবাই জানে। নতুন জোটকে স্বাগত জানাই, তবে বাংলাদেশের জনগণকে দেখতে হবে এই জোটে কারা আছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত মঙ্গলবার সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে সৌদি আরব যান। সফরে তিনি সৌদি আরবের বাদশাহর পাশাপাশি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেন। সফরে রিয়াদের কূটনৈতিক এলাকায় নিজস্ব জমিতে বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের উদ্বোধন এবং জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি মদিনায় গিয়ে মসজিদে নববীতে এশার নামাজ আদায় এবং মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা জিয়ারত করেন। এ সফরে পবিত্র ওমরাহ পালন করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সৌদি আরব সফরের বিস্তারিত বিষয় তুলে ধরছেন।

যেভাবে ফেসবুক ও ইউটিউবে নজরদারি করবে সরকার

0

নভেম্বর থেকে ফেসবুক, ইউটিউব ও গুগল নিয়ন্ত্রণ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

গত শনিবার রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এ ঘোষণা দেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এমন সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমরা আর পিছিয়ে নেই, অনেক দূর এগিয়েছি। ফেসবুক একসময় আমাদের কথায় কোনো কর্ণপাত না করলেও, এখন শুনছে। আমাদের দেশীয় আইনকানুন অনুযায়ীই তারা চলবে। আগামী মাস থেকে ফেসবুক, ইউটিউব ও গুগল নিয়ন্ত্রণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এই মাসেই সব ধরনের ডিভাইস আসবে। এর মাধ্যমে নির্বাচনকে ঘিরে অপপ্রচার, গুজব ও মিথ্যা তথ্য প্রতিরোধ করতে সক্ষম হব।

ফেসবুক বা ইউটিউবের মত সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত যে কোন কনটেন্ট যদি বাংলাদেশ সরকারের কাছে দেশের জন্য ক্ষতিকর বলে মনে হয়, তাহলে সরকার চাইলেই সেগুলো প্রতিরোধ করতে বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।

এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কিছু প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানান টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার।

তিনি জানান, এসব প্রযুক্তির মধ্যে হার্ডওয়্যার বা সফটওয়্যার দুটোই থাকতে পারে এবং খুব শিগগিরই এগুলো ব্যবহারের মাধ্যমে নজরদারি করা হবে।

যেভাবে নজরদারি করা হবে

এসব প্রযুক্তির মাধ্যমে কিভাবে ফেসবুক বা ইউটিউবের কনটেন্টের ওপর নজর রাখা যায়? এমন প্রশ্নের জবাবে আয়ারল্যান্ডে সোশ্যাল মিডিয়া গবেষক এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড হেলথ গ্রুপের তথ্য প্রযুক্তিবিদ ড. নাসিম মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ সরকার চাইলে দুইভাবে এসব কন্টেন্টের ওপর নজর রাখতে পারবে।

প্রথমত, ফেসবুক বা গুগলের মত বড় প্রতিষ্ঠানের কাছে সরকার তথ্য চাওয়ার মাধ্যমে। অনেক দেশই তাদের প্রয়োজনে ফেসবুক বা গুগলের কাছে তথ্য চেয়ে থাকে।

দ্বিতীয়ত, পরোক্ষভাবে নজরদারি করা, যেমন বিশেষজ্ঞ বা পারদর্শী কারও মাধ্যমে পুরো ফেসবুক নেটওয়ার্ককে মনিটর করা।

এ ধরনের কাজের জন্য আলাদা কোম্পানি আছে। যারা আপনার হয়ে ফেসবুক বা গুগলের ওপর নজরদারি করতে পারে।

যদি ক্ষতিকর কোন শব্দ বা মন্তব্য সামাজিক মাধ্যমে চলে যায় তখন এই কোম্পানিগুলো আপনাকে সে বিষয়ে দ্রুত জানাতে পারবে।

তবে তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী যেটা বলছেন, সরকার কিছু প্রযুক্তি আনতে যাচ্ছে, যেটা থেকে জানা যাবে যে, কোথায়, কী ধরনের ভিডিও আপলোড হয়েছে, কারা এসবের পেছনে জড়িত।

সুনির্দিষ্টভাবে এই ধরনের নজরদারি করার কোন প্রযুক্তি নেই বলে জানান ড. নাসিম মাহমুদ।

তার মতে, এ ব্যাপারে পারদর্শী কাউকে নিয়োগ দেয়া যায়, যার কাজ হবে প্রতিনিয়ত ওই মাধ্যমগুলোকে মনিটর করা।

তবে মানুষের কাজটি এখন একটি সফটওয়্যার দিয়েই করা সম্ভব।

সফটওয়্যারে যদি নির্দিষ্ট কোন শব্দ বাছাই করে দেয়া হয়, তাহলে কেউ সেই শব্দ প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে সফটওয়্যারটি বিস্তারিত তথ্যসহ আপনাকে একটা ইমেইল পাঠিয়ে দেবে।

এছাড়া সংশ্লিষ্ট শব্দের সাথে নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তির নাম এসেছে কিনা এবং সেটা ইতিবাচক অথবা নেতিবাচক কিনা এ ধরনের কাজগুলো সেই সফটওয়্যারের মাধ্যমে করা যায়।

কেউ যদি অন্য কোন দেশে বসেও এমন কাজ করে থাকে তাহলেও সেই সফটওয়্যারটি দিয়ে ওই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের পরিচয় খুঁজে পাওয়া সম্ভব হবে।

অনেকেই তাদের পেশাগত প্রয়োজনে এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকেন।

বিতর্কিত তথ্যগুলো কি মুছে দেয়া যাবে?

ওই সফটওয়্যার ক্ষতিকর কন্টেন্ট সনাক্ত করতে পারলেও সেগুলো আর মুছে দিতে পারে না।

এ বিষয়ে ড. নাসিম বলেন, যেটা একবার পোস্ট করা হয়ে যায় সেটা চাইলেই ডিলিট করা সম্ভব না।

তিনি বলেন, সেক্ষেত্রে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশ সরকার যেটা করতে পারেন সেটা হল, তারা সে ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য চাইতে পারেন।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিবছরই ফেসবুকের কাছে তাদের ব্যবহারকারীদের তালিকা দিয়ে বিস্তারিত তথ্য চাওয়া হয়।

এ বছর হয়ত ১০০ মানুষের তথ্য চেয়েছে, সামনের বছরে হয়তো এক হাজার মানুষের তথ্য চাইতে পারবে।

মত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকবে?

এখানে কি তাহলে মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করা বা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা থাকছে? এমন প্রশ্নের জবাবে ড. নাসিম বলেন, এটি ব্যাপকভাবে মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করবে।

তিনি বলেন, আপনি যদি আগে থেকেই জানেন যে আপনি মুখ খুললে, আপনাকে খুঁজে বের করে জিজ্ঞেসাবাদ করা সম্ভব। তাহলে এই মুখ খোলার হার অনেক কমে যাবে।

ড. নাসিমের মতে, যারা মূলধারার গণমাধ্যমের কাছে তাদের মনের কথাগুলো বলার সুযোগ পান না তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দ্বারস্থ হন।

এখন যদি এই সামাজিক মাধ্যমের ওপর সরকার রীতিমত ঘোষণা দিয়ে সফটওয়্যারের সাহায্যে, বিশেষায়িত হার্ডওয়্যার দিয়ে বা শক্তিশালী কোন সার্ভার ব্যবহার করে সবার নেটওয়ার্কে প্রবেশের চেষ্টা করে তাহলে সাধারণ মানুষ কথা বলা থেকে বিরত থাকবে বলে জানান ড. নাসিম মাহমুদ।

বিবিসি অবলম্বনে

লোপেতেগির বরখাস্ত চায় অর্ধেকের বেশি রিয়াল সমর্থক

0

লেভান্তের কাছে ঘরের মাঠে হারের পর রিয়ালের জীবন কঠিন হয়ে উঠেছে ব্লাঙ্কোসদের কোচ হুলেন লোপেতেগির। মাদ্রিদ জায়ান্টদের ডাগআউটে তার ভবিষ্যৎ এখন যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি প্রশ্নের সম্মুখীন।

টানা পাঁচ ম্যাচে জলশূন্য রিয়াল। এর মধ্যে চারটিতেই হার। তার উপর ক্লাবের ইতিহাসে গোলখরার রেকর্ড লোপেতেগির চাকরি আরও হুমকির মুখে ফেলেছে।

চরম সংকটের মধ্যেই আবার রোববার এল ক্ল্যাসিকোতে বার্সেলোনার মুখোমুখি হবে রিয়াল। সেটিও আবার কাতালানদের ঘরের মাঠ বার্নাব্যুতে। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগেই কি লোপেতেগিকে বরখাস্ত করা উচিত? এল ক্ল্যাসিকোর আগে রিয়াল সমর্থকদের এই প্রশ্ন করেছিল মাদ্রিদভিত্তিক স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা।

মাত্র ২৪ ঘণ্টায় ১ লাখ ৬০ হাজার মার্কা পাঠক ভোট দিয়েছেন। তার মধ্যে ৫৩% এল ক্ল্যাসিকোর আগেই লোপেতেগির বরখাস্ত চান। ৪৭% এখনও তাকে দায়িত্বে রাখার পক্ষে। যদিও ভোট দেয়ার সময় বাকিই রয়েছে এবং যেকেউ চাইলে এল ক্ল্যাসিকোর আগ পর্যন্ত ভোট দিতেন পারবেন।

অন্যদিকে, লেভান্তে হারের পর আরেকটি জরিপ চালায় স্প্যানিশ প্রভাবশালী অন্য ক্রীড়া দৈনিক এএস। তাতে অবশ্য প্রশ্ন ছিল ভিন্ন। এএসের প্রশ্ন ছিল, রিয়ালের এই সংকটের জন্য আসল দায়ী কে? সেখানে পয়েন্ট ছিল দুটি, এক- ক্লাব প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্টিনো পেরেজ? দুই- কোচ হুলেন লোপেতেগি?

এএসের জরিপে ভোট দেন ৮০ হাজারের বেশি রিডার। ৮১ হাজার ১০৭জন ভোটারের মধ্যে ৮৭% দোষী সাব্যস্ত করেছেন ক্লাব প্রেসিডেন্ট পেরেজকে। আর মাত্র ১৩% কাঠগড়ায় লোপেতেগি। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে বিক্রির জন্যেই বেশিভাগ ভোটার পেরেজকে দায়ী করেছেন বলে জানাচ্ছে স্প্যানিশ মিডিয়া।

সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন চায় যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

0

মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট বলেছেন, তাঁর দেশ বাংলাদেশে সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায়। এ সময় তিনি আগামী নির্বাচনে সব দলকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ারও আহ্বান জানান।

আজ সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনাকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূত এসব কথা বলেন।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক বন্ধুপ্রতিম। বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা সমুন্নত থাকুক, যুক্তরাষ্ট্র সেটাই প্রত্যাশা করে। অবাধ, গ্রহণযোগ্য ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা শক্তিশালী হয়।

বিএনপি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি, এবারও যদি দলটি নির্বাচনে না আসে, তাহলে সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে কি না—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মার্শা বার্নিকাট বলেন, ‘ভোটাররা নির্বিঘ্নে, নিশ্চিন্তে কেন্দ্রে গিয়ে তাঁদের পছন্দের দল ও প্রার্থীকে ভোট দিতে পারলেই সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়।’

এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমরা কোনো দলকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করার কথা ভাবছি না।’

রাখির বিরুদ্ধে তনুশ্রীর ১০ কোটি রুপির মানহানি মামলা

0

ভারতজুড়ে এখন চলছে নিপীড়নবিরোধী ‘হ্যাশট্যাগ মি টু আন্দোলন’। বলিউডের বেশ কয়েকজন রথী-মহারথীর নাম হেনস্তাকারীর তালিকায় উঠে এসেছে। আর এ আন্দোলনের সূত্রপাত বর্ষীয়ান অভিনেতা নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে সাবেক বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তর যৌন হেনস্তার অভিযোগ।

বঙ্গতনয়া তনুশ্রীর অভিযোগ, ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি আইটেম গানের শুটিং চলাকালে নানা পাটেকার তাঁকে হেনস্তা করেছিলেন। এর পর তিনি যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। ১০ বছর পর ভারতে ফিরে একটি জাতীয় টেলিভিশনে হেনস্তা নিয়ে মুখ খোলেন তনুশ্রী। তিনি এ-ও বলেন, ওই সময় যখন তিনি শুটিং সেট থেকে বেরিয়ে যেতে চেয়েছিলেন, তখন হামলার শিকার হন।

পরে নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন তনুশ্রী দত্ত। মামলাটির তদন্ত চলছে।

যা হোক, যে আইটেম গানের শুটিং নিয়ে এত বিতর্ক, সেই ‘নাতনি উতারো’ গানটিতে তনুশ্রীর পরিবর্তে তখন যুক্ত হন রাখি সায়ন্ত। এ বিতর্কের শুরুর দিকে রাখি সায়ন্ত নানার পক্ষে মত দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, নানার সম্মানহানি করতেই তনুশ্রী ‘মিথ্যা’ অভিযোগ করছেন। আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদ সম্মেলনও করেছিলেন রাখি।

ওই ‘বিশেষ’ সংবাদ সম্মেলনে রাখি বলেন, ১০ বছর ‘কোমায়’ থেকে এখন তনুশ্রী এসেছেন শ্রদ্ধাভাজন বর্ষীয়ান অভিনেতা নানা পাটেকারকে কলঙ্কিত করতে। তনুশ্রী সম্পর্কে একাধিক ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যও করেন রাখি। বলেন, তনুশ্রীর শরীরে কি সোনা-হীরা বসানো যে ছোঁয়া যাবে না? আইটেম গানের নাচে একজন ভারত আর একজন পাকিস্তানে থেকে শুটিং করবে?

রাখি সায়ন্ত বলেন, ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির যে গানটিতে তনুশ্রীর পরিবর্তে তিনি নেচেছিলেন, সে গানটি তাঁর পছন্দ হয়নি। তবু নানা পাটেকারের সম্মানে তিনি নেচেছিলেন। শুটিং সেটে যখন রাখি যান, তখন তনুশ্রী মাদকাসক্ত হয়ে বেহুঁশ ছিলেন।

এর কিছুদিন পর, ‘তনুশ্রীর সমর্থকরা ফোনে হুমকি দিচ্ছে’, এমন অভিযোগ করে থানায় অভিযোগপত্রও দাখিল করেন রাখি সায়ন্ত।

যাহোক, নতুন খবর হলো, রাখির অভিযোগের জবাব দিতে তনুশ্রী দত্ত তাঁর বিরুদ্ধে ১০ কোটি রুপির মানহানি মামলা দায়ের করেছেন।

তনুশ্রীর আইনজীবী নিতিন সতপুতি রিপাবলিক টিভিকে বলেছেন, তাঁর মক্কেলের ‘চরিত্র ও ভাবমূর্তি’ ক্ষুণ্ণ করায় রাখি সায়ন্তর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করা হয়েছে। নিতিন এ-ও বলেন, রাখি যদি অভিযোগ প্রমাণ না করতে পারেন, তবে শাস্তি হিসেবে তিনি দুই বছরের জেল বা জরিমানা বা উভয় দণ্ড পেতে পারেন।

এদিকে, যৌন হেনস্তার অভিযোগের ওঠার পর ‘হাউসফুল-৪’ ছবি থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন নানা পাটেকার। চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন শিল্পীদের সংগঠন ‘সিনটা’ তাঁকে অভিযোগের ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে বলে। সিনটাকে নানা উত্তর বলেছেন, তনুশ্রীর অভিযোগ ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ ও ‘বিদ্বেষপ্রসূত’।

তনুশ্রী দত্ত মুখ খোলার পর বিনোদন জগতের বেশ কয়েকজন নারী তাঁদের #মিটু গল্প বলেছেন। তাঁরা সাজিদ খান, অলোকনাথ, রজত কাপুর, কৈলাস খেরসহ বেশ কয়েকজনের নামও উচ্চারণ করেছেন। মনে হচ্ছে, মিটু আন্দোলন আরো সম্প্রসারিত হবে এবং আরো অনেকের নাম যুক্ত হবে। তবে অনেক তারকাই বলেছেন, মিটু আন্দোলনের যেন অপব্যবহার না হয়, কেউ যেন ‘মিথ্যা’ অভিযোগ না তোলে। সূত্র : পিংকভিলা।

ভোলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা

0

নারী সাংবাদিককে কটূক্তির অভিযোগে ভোলায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ৫০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করা হয়েছে।

এ মামলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে জুডিসিয়ালি তদন্ত দিয়েছে অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রে আদালতে।

সোমবার দুপুরে ভোলা যুব মহিলা লীগ আহবায়ক খাদিজা আক্তার স্বপ্না বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়,গত ১৬ অক্টোবর একাত্তর টিভির একাত্তর জার্নাল নামে একটি টকশোতে প্রখ্যাত সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে অবমাননা করে বক্তব্য দেন মইনুল হোসেন। যার মাধ্যমে নারীদের মর্যাদাকে হেয় করা হয়েছে। তার বক্তব্য মানহানিকর।

মামলায় ৫০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে। আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিচারক শরীফ মোহাম্মদ ছানাউল হক মামলাটি গ্রহণ করে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে জুডিসিয়ালি তদন্ত দিয়েছে অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। আগামী ৩১ অক্টোবর তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

চোখের সুরক্ষা করে পালংশাক ও বিট

0

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, নাইট্রেটে পূর্ণ পালংশাক, বিটরুট চোখের ম্যাকুলার ক্ষয় প্রতিরোধ করতে পারে। আর এই ম্যাকুলার ক্ষয়ের জন্যই চোখের দৃষ্টি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। সাধারণত ৫০ বছর বয়সের পরে অনেকের চোখে ম্যাকুলার ক্ষয় সমস্যা দেখা দেয়। এতে চোখে কালো দাগ, ঝাপসা দেখা ইত্যাদি সমস্যা তৈরি হয়। ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও পুষ্টি সম্পর্কিত তথ্য কেন্দ্র ‘অ্যাকাডেমি অফ নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়াটেটিকস’ এ প্রকাশিত এক সমীক্ষা থেকে জানা যায়, যারা দিনে ১০০ থেকে ১৪২ মিলিগ্রাম নাইট্রেট গ্রহণ করেন তাদের মধ্যে বয়সজনিত ম্যাকুলার ক্ষয়ের ঝুঁকি কমে যায় ৩৫ শতাংশ।

এদিকে প্রতি ১০০ গ্রাম পালংশাকে ২০ মিলিগ্রাম করে নাইট্রেট থাকে। আর ১০০ গ্রাম বিটে থাকে ১৫ মিলিগ্রাম নাইট্রেট। এ কারণে এই দুটি খাদ্যকে অন্ধত্ব রোধে দারুন কার্যকরী বলে ধরা হয়।

অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টমিড ইনস্টিটিউট ফর মেডিক্যাল রিসার্চের প্রধান গবেষক বামিনি গোপীনাথ বলেন, এই প্রথম খাবারে নাইট্রেটের ভূমিকা ও ম্যাকুলার ক্ষয় নিয়ে কাজ করা হল। ৪৯ বছরের উপরে প্রায় ২০০০ জন অস্ট্রেলিয়ানকে নিয়ে ১৫ বছর ধরে এই সমীক্ষাটি করা হয়েছে।

গবেষণা বলছে, যারা খাবারে নিয়মিত পালং শাক ও বিটের মতো সবজি যোগ করছেন তাদের ম্যাকুলার ক্ষয়ের সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

যারা দিনে ১৪২ মিলিগ্রামের বেশি নাইট্রেট খান তাদের জন্য কোনও আশঙ্কার কথা বলা হয়নি গবেষণায়। চোখের ম্যাকুলার ক্ষয় রোধে এখন পর্যন্ত কোনও ওষুধই সেভাবে আবিষ্কৃত হয়নি। এ কারণে গবেষকরা চোখ ভাল রাখতে নিয়মিত নাইট্রেট সমৃদ্ধ খাবার গ্রহনের পরামর্শ দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

0

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংবাদ সম্মেলন শুরু হয়েছে। বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত মঙ্গলবার সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে সৌদি আরব যান। সফরে তিনি সৌদি আরবের বাদশাহর পাশাপাশি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেন। সফরে রিয়াদের কূটনৈতিক এলাকায় নিজস্ব জমিতে বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের উদ্বোধন এবং জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি মদিনায় গিয়ে মসজিদে নববীতে এশার নামাজ আদায় এবং মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা জিয়ারত করেন।

এ সফরে পবিত্র ওমরাহ পালন করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সৌদি আরব সফরের বিস্তারিত বিষয় তুলে ধরছেন।

খাসোগি হত্যায় নগ্নসত্য প্রকাশে সর্বাত্মক পদক্ষেপ নেওয়া হবে: এরদোয়ান

0

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান গতকাল রোববার জোর দিয়ে বলেছেন, যেভাবেই হোক, তিনি সৌদি কনস্যুলেটে নিহত সাংবাদিক জামাল খাসোগির ব্যাপারে নগ্নসত্য প্রকাশ করবেন। ইস্তাম্বুলে এক সমাবেশে এরদোয়ান বলেন, আমরা সুবিচার খুঁজছি। খাসোগি হত্যায় যেনতেন পদক্ষেপ নয়, নগ্নসত্য প্রকাশে সর্বাত্মক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সৌদি সরকার এর মধ্যে স্বীকার করেছে, ইস্তাম্বুলে তাদের কনস্যুলেটের ভেতরে খাসোগিকে হত্যা করা হয়। এর এক দিন পরই তুর্কি নেতা এই বিবৃতি দিলেন।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদেল আল জুবায়ের গতকাল রোববার খাসোগি হত্যার ঘটনাকে ‘সাংঘাতিক ভুল’ বলে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, দুর্বৃত্তরা এই অভিযান চালিয়েছে। জুবায়ের ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে খাসোগিকে হত্যা করা হয়নি। আমরা জানি না খাসোগির মৃতদেহ কোথায়।

এএফপির খবরে জানা যায়, তুরস্কের প্রেসিডেন্টের একটি সূত্র জানায়, গতকাল যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন এরদোয়ান। দুই নেতা একমত পোষণ করেছেন যে সবদিক থেকে খাসোগি হত্যার বিষয়টি ব্যাখ্যা করতে হবে। কাল মঙ্গলবার এ নিয়ে পার্লামেন্টে এরদোয়ানের বিবৃতি দেওয়ার কথা।

তুর্কি কর্মকর্তারা বলছেন, তাঁরা বিশ্বাস করেন, ২ অক্টোবর দুটি উড়োজাহাজে করে সৌদি আরব থেকে ১৫ জন ইস্তাম্বুলে আসেন। তাঁরা খাসোগি হত্যায় জড়িত। তবে রিয়াদ বলছে, ১৫ জনের মধ্যে একজন কয়েক বছর আগে গাড়ি দুর্ঘটনায় নিহত হন।

সৌদি আরব বলছে, কনস্যুলেটের ভেতরে খাসোগির সঙ্গে তাঁদের বাদানুবাদ হয়। ‘হাতাহাতিতে খাসোগি খুন’ হন।

২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনে ব্যক্তিগত কাগজপত্র আনার প্রয়োজনে ঢোকার পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন সৌদির খ্যাতনামা সাংবাদিক খাসোগি। শুরু থেকে তুরস্ক দাবি করে আসছে, খাসোগিকে কনস্যুলেট ভবনের ভেতর সৌদি চরেরা হত্যা করেছে। গত বছর সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতা গ্রহণের পর রোষানলে পড়েন খাসোগি। তিনি দেশ ছেড়ে স্বেচ্ছা নির্বাসনে চলে যান যুক্তরাষ্ট্রে। ওয়াশিংটন পোস্ট-এ যুবরাজ মোহাম্মদের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে একের পর এক কলাম লেখেন। অভিযোগ উঠেছে, যুবরাজের নির্দেশে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় এ হত্যা সংঘটিত হয়েছে।

কাল উদ্বোধন বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সেতুর

0

চালু হতে যাচ্ছে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সেতু ‘হংকং-ঝুহাই-ম্যাকাও ব্রিজ। চীনের দক্ষিণের শহর ঝুহাইয়ের সঙ্গে হংকং ও চীনের সিটমহল ম্যাকাওয়ের মধ্যে সংযোগ স্থাপনে নির্মিত হয়েছে সেতুটি।

২০ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে নির্মিত ৫৫ কিলোমিটার (৩৪ মাইল) দীর্ঘ সেতুটির কাজ গত বছরের ডিসেম্বরে শেষ হয়। আগামীকাল মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) উদ্বোধন করা হবে। আর জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হবে পরের দিন বুধবার। নির্মাণের ৯ বছর পর চালু হতে যাচ্ছে এটি।

ঝুহাইতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হংকং ও মাকাউয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাসহ চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

সেতুটি চালু হলে দক্ষিণ চীনের ৫৬ হাজার ৫০০ বর্গ কিলোমিটার (২১ হাজার ৮০০ বর্গ মাইল) এলাকার মানুষের সঙ্গে হংকং ও ম্যাকাউসহ ১১টি শহরের ৬৮ মিলিয়ন মানুষের যোগাযোগ সহজ হবে। উভয় অঞ্চলের যাত্রী ও যানবাহনগুলো সরাসরি এক অঞ্চল থেকে আরেক অঞ্চলে আসা-যাওয়া করতে পারবে।

সেতুটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে পর্যটকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ম্যাকাও ও ঝুহাইয়ের মধ্যে কাস্টমস ক্লিয়ারেন্সের জন্য একটি যৌথ তদারকি এবং একবারের ছাড়পত্র নীতি অনুসরণ করা হবে। অর্থাৎ নতুন এ কাস্টমস সিস্টেমের অধীনেএই সেতু দিয়ে পর্যটকদের এক অঞ্চল থেকে আরেক অঞ্চলে যেতে একবারই ছাড়পত্র দেখাতে হবে। প্রক্রিয়াটি হতে পারে অটোমেটিক বা সেমি-অটোমেটিক বা ম্যানুয়াল।

পৃথিবীর এই দীর্ঘতম সমুদ্র সেতু ব্যবহার করে হংকং থেকে ঝুহাই যেতে সময় লাগবে মাত্র ৩০ মিনিট। যেখানে আগে সময় লাগত তিন ঘণ্টারও বেশি। ইংরেজি বর্ণমালা ‘ওয়াই’ আকৃতির মতো দেখতে সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১১ সালে। কোনো রকম মেরামত না করে ১২০ বছর অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে সেতুটি।